শনিবার, ০৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:০২ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
বগুড়ায় ওয়ার্কার্স পার্টির মাস্ক ও বিতরণ বগুড়ায় বিএনপি কার্যালয়ে করোনা আক্রান্ত রোগীর পরিবারের মাঝে বিনামূল্যে ঔষধ বিতরণ বগুড়ায় মাটিডালী ফুটবল প্রিমিয়ার লীগ এর উদ্বোধন বগুড়া সদর উপজেলা শাখারিয়া জামে মসজিদের ছাদ ঢালাই কাজের উদ্বোধন সিংড়ায় জেএসএস নবগঠিত কমিটির পরিচিতি ও মতবিনিময় সভা বগুড়ায় মানববন্ধন অনুষ্ঠিত মোশারফ এমপির সঙ্গে নবনির্বাচিত এম-ট্যাব বগুড়ার আঞ্চলিক কমিটির নেতৃবৃন্দের সৌজন্যে সাক্ষাৎ মহাস্থানে ভূয়া কাবিনে বিবাহ, ৩বছর স্বামী স্ত্রী পরিচয়ে ধর্ষণের অভিযোগে কোর্টে মামলা দায়ের নন্দীগ্রামে হাঁস নিয়ে মারামারির ঘটনায় গুরুতর আহত ৪ সিংড়ায় সমাজসেবায় এ্যাওয়ার্ড পেলেন রুবেল হোসেন

ধর্ষণ মামলায় মামুনুলের কথিত দ্বিতীয় স্ত্রীর মেডিকেল টেস্ট

অনলাইন ডেক্স
  • Update Time : শুক্রবার, ৩০ এপ্রিল, ২০২১
  • ৭৬ Time View

হেফাজতে ইসলামের সাবেক কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হকের ‍কথিত দ্বিতীয় স্ত্রী জান্নাত আরা ঝর্ণাকে মেডিকেল টেস্টের জন্য নারায়ণগঞ্জের সিভিল সার্জনের কার্যালয়ে নেওয়া হয়েছে। এর আগে বিয়ের আশ্বাস দিয়ে ধর্ষণের অভিযোগে মামুনুল হকের ‍বিরুদ্ধে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও থানায় মামলা দায়ের করেন ঝর্ণা।

শুক্রবার (৩০ এপ্রিল) সকালে তাকে সিভিল সার্জনের কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়া হয়।
মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, রিসোর্টকাণ্ডের পর পরিচিতদের বাসায় জোরপূর্বক আটকে রাখা হয় তাকে। এ সময় তাকে তার বাবা-মার সঙ্গেও যোগাযোগ করতে দেওয়া হয়নি। প্রথম স্বামী শহীদুলের সঙ্গে সংসার ভাঙার মাস্টারমাইন্ডও ছিল মামুনুল।

আমাকে পারলারে কাজ দিয়ে সাবলেটে রাখেন মামুনুল’
এর আগে, ৩ এপ্রিল হেফাজত নেতা মামুনুল হক নারীসহ নারায়ণগঞ্জের রয়েল রিসোর্টে ধরা পড়েন। তখন তিনি ওই নারীকে দ্বিতীয় স্ত্রী হিসেবে পরিচয় দেন। পরে প্রথম স্ত্রী আমেনা তৈয়বার সঙ্গে একটি ফোনালাপ ফাঁস হয় তার। যেখানে মামুনুল বলেন, জনরোষ থেকে বাঁচতেই জান্নাত আরা ঝর্ণাকে দ্বিতীয় স্ত্রীর পরিচয় দিয়েছিলেন তিনি। আসলে ওই ঝর্ণা হাফেজ শহীদুলের স্ত্রী।
১৮ এপ্রিল মামুনুল গ্রেফতার হলে জিজ্ঞাসাবাদে রিসোর্টকাণ্ড নিয়ে চাঞ্চল্যকর তথ্য বেরিয়ে আসে। পরের দুই নারীর সঙ্গে চুক্তিভিত্তিক সম্পর্ক করেন মামুনুল। এরপর পুলিশ মামুনুলের বোনের মোহাম্মাদপুরের বাসা থেকে জান্নাত আরা ঝর্ণাকে উদ্ধার করে তার বাবার জিম্মায় দিয়ে দেয়।
হেফাজত নেতা মামুনুল হক বর্তমানে দ্বিতীয় দফায় পুলিশ রিমান্ডে রয়েছেন। পাকিস্তানি জঙ্গি সংগঠনের সঙ্গে সম্পৃক্ততা ছাড়াও তার ব্যাংক হিসাবে ৬ কোটি টাকা লেনদেনের সন্ধান পেয়েছে গোয়েন্দা পুলিশ।

এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন.

Leave a Reply

More News Of This Category
logo

এই পত্রিকার সকল সংবাদ, ছবি ও ভিডিও স্বত্ত্ব সংরক্ষিত ©২০19 boguracity.com